বুধবার, ১৩ ডিসেম্বর ,২০১৭

Bangla Version
SHARE

মঙ্গলবার, ১০ অক্টোবর, ২০১৭, ০৮:০১:৫৩

ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিষয়ে হাইকোর্টের রায় ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত স্থগিত

ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিষয়ে হাইকোর্টের রায় ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত স্থগিত

ডেস্ক রিপোর্টঃ-নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা অবৈধ ও অসাংবিধানিক ঘোষণা করে হাইকোর্টের দেওয়া রায় ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত স্থগিত করেছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ।
রাষ্ট্রপক্ষের সময় আবেদনের প্রেক্ষিতে ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে পাঁচ বিচারপতির পূর্ণাঙ্গ আপিল বেঞ্চ আজ মঙ্গলবার এ আদেশ দেন।
এর আগেও কয়েক দফা এই রায় স্থগিত ঘোষণা করেছিলেন আপিল বিভাগ।
২০১১ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর ভবন নির্মাণ আইনের কয়েকটি ধারা লঙ্ঘনের অভিযোগে আবাসন কোম্পানি এসথেটিক প্রপার্টিজ ডেভেলপমেন্টের চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান খানকে ভ্রাম্যমাণ আদালত ৩০ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ডাদেশ দেন। ২০ সেপ্টেম্বর তিনি জামিনে মুক্তি পান। এরপর তিনি ভ্রাম্যমাণ আদালত আইন (মোবাইল কোর্ট অ্যাক্ট, ২০০৯) এর কয়েকটি ধারা ও উপধারার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে ১১ অক্টোবর রিট আবেদন করেন।
রিটের শুনানি নিয়ে একই বছর রুল জারি করেন হাইকোর্ট। আদালতের জারি করা রুলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের দিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার ৫ ধারা এবং ৬(১), ৬(২), ৬(৪), ৭, ৮(১), ৯, ১০, ১১, ১৩, ১৫ ধারা নিয়ে প্রশ্ন ওঠে। পরে এ ধরনের আরও দু’টি রিট করা হয়। তিন রিটে মোট ১৯ আবেদনকারীর শুনানি শেষে গত ১১ মে রায় ঘোষণা করা হয়।

এই বিভাগের আরও খবর

  প্রধানমন্ত্রীর ফ্লাইটে ত্রুটি: বিমানের ১০ কর্মীর জামিন

  ‘জয় বাংলা’ জাতীয় স্লোগান ঘোষণা প্রশ্নে রুল শুনানি ১৮ জানুয়ারি

  বিচারকদের শৃঙ্খলাবিধি প্রকাশে ১৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত সময়

  পেট্রোবাংলা-নাইকো চুক্তির রায় স্থগিতে শুনানি ১১ জানুয়ারি

  ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলাঃ ষড়যন্ত্রমূলক সভা হয় ১১ স্থানে

  আদালতে দেয়া বেগম খালেদা জিয়ার পুর্নাঙ্গ সমাপনী জবানবন্দী

  জয় বাংলাকে কেন জাতীয় শ্লোগান ঘোষণা নয়-হাইকোর্ট

  ৪ কোটি ৬১ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ পাবে তারেক মাসুদের পরিবার

  তারেক মাসুদের মৃত্যু: ক্ষতিপূরণ মামলার রায় ঘোষণা রবিবার পর্যন্ত মুলতবি

  তথ্য প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারা বিলুপ্ত হচ্ছে-হাসানুল হক ইনু

  ‘হাওয়া ভবন ও পিন্টুর সরকারি বাসভবনে গ্রেনেড হামলার ষড়যন্ত্র হয়’

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

পুলিশের আইজিপি এ কে এম শহিদুল হক বলেছেন, ‘দেশকে জঙ্গি, মাদক ও সন্ত্রাসমুক্ত করতে হলে পুলিশের পাশাপাশি জনগণকে কাজ করতে হবে।’ আপনিও কি তাই মনে করেন?