শনিবার, ২০ জানুয়ারী ,২০১৮

Bangla Version
  
SHARE

সোমবার, ০৯ অক্টোবর, ২০১৭, ০৬:৫১:২৫

জঙ্গি মারজানের বোন খাদিজা আত্মসমর্পণঃ যশোরে জঙ্গি আস্তানায় ‘অপারেশন মেল্ট ‍এ আইস’ সমাপ্ত

জঙ্গি মারজানের বোন খাদিজা আত্মসমর্পণঃ যশোরে জঙ্গি আস্তানায় ‘অপারেশন মেল্ট ‍এ আইস’ সমাপ্ত

ডেস্ক রির্পোটঃ-যশোর শহরের ঘোপ নওয়াপাড়া রোডের জঙ্গি আস্তানায় ‘অপারেশন মেল্ট ‍এ আইস’ সমাপ্ত হয়েছে। সোমবার বিকেলে পাঁচটার দিকে ওই ভবন থেকে বেরিয়ে এসে খুলনা রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি একরামুল হাবিব অপারেশন সমাপ্ত ঘোষণা করেন। পরে তিনি সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন।
একরামুল হাবিব জানান, বিকেল ৩টায় গুলশান হামলার অন্যতম ‘হোতা’ জঙ্গি মারজানের বোন খাদিজা আত্মসমর্পণের পর বাড়িটি তল্লাশি শুরু করা হয়। সেখানে বম্ব ডিসপোজাল ইউনিট তিনটি শক্তিশালী সুইসাইডাল ভেস্ট নিষ্ক্রীয় করে। ওই ভবন থেকে কয়েকটি স্থানের লোকেশন ম্যাপ পাওয়া গেছে। যা জঙ্গিরা পরবর্তী হামলার টার্গেট করেছিল বলে ধারণা করা হচ্ছে। আইনশৃংখলা বাহিনীর সদস্যরা ওই ভবনের অন্যান্য মালামালের ফিগার লিস্ট তৈরি কাজ করছে।
তিনি আরো জানান, আত্মসমর্পণ করা খাদিজাকে পুলিশি হেফাজতে রাখা হয়েছে। খাদিজার সঙ্গে পাঁচ ও তিন বছর বয়সী দুটি কন্যা সন্তান ও দুই বছরের একটি ছেলে সন্তান রয়েছে। খাদিজার স্বামীকে আটক করা যায়নি।
এর আগে সোমবার বিকেল ৩টার দিকে খাদিজা ছেলে-মেয়েসহ আত্মসমর্পণ করেন। আত্মসমর্পণের আগে ঘিরে রাখা বাড়ির দ্বিতীয় তলা থেকে খাদিজা তার ‘বাবা-মাকে এনে দেয়ার’ শর্ত দেন।  শর্ত মোতাবেক তার বাবা-মাকে ঘটনাস্থলে আনা হয়। বেলা পৌনে ৩টার দিকে তাদের ওই বাড়ির সামনে আনা হয়।

এই বিভাগের আরও খবর

  জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলা পরবর্তী শুনানি ২৩ জানুয়ারি

  ডিএনসিসির মেয়র পদে উপনির্বাচন স্থগিত

  ভ্রাম্যমাণ আদালতঃ আপিলের অনুমতি পেলো সরকার

  সংবিধানের ৭০ অনুচ্ছেদ নিয়ে দ্বিধাবিভক্ত আদেশ, নিষ্পত্তি হবে তৃতীয় বেঞ্চে

  ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলাঃ আসামি পক্ষের অপ্রয়োজনীয় বক্তব্যে আদালত বিরক্ত

  হাই কোর্টে আটকে গেল ফোর জি

  পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদ আইন বাতিলে আপিল শুনানি ২৩ জানুয়ারি

  ভ্রাম্যমাণ আদালত বিষয়ে আপিল শুনানি ১৬ জানুয়ারি

  রোহিঙ্গা নারীকে বিয়েঃ রিট খারিজ ও জরিমানা

  ২০ বছর ধরে বিচারাধীন ১৯ জেল আপিল গ্রহণ করেছে হাইকোর্ট

  মেয়র সাক্কুকে আত্মসমর্পণে হাইকোর্টের নির্দেশ

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের প্রশ্ন

পুলিশের আইজিপি এ কে এম শহিদুল হক বলেছেন, ‘দেশকে জঙ্গি, মাদক ও সন্ত্রাসমুক্ত করতে হলে পুলিশের পাশাপাশি জনগণকে কাজ করতে হবে।’ আপনিও কি তাই মনে করেন?